ওয়াকি-টকি

আলেকজান্ডার গ্রাহাম্বেলের নাম মোটামুটি সবার জানা। উনবিংশ শতাব্দীর প্রথম দিকে যিনি সর্বপ্রথম মানুষের যোগাযোগের জন্য টেলিফোন নামক একটি যন্ত্র আবিষ্কার করে রীতিমতো হৈ চৈ ফেলে দিয়েছিলেন।

alexander-graham-bell
তারপরঃ সময়টা ১৯৩৯। শুরু হয়েছে ২য় বিশ্ব যুদ্ধ।এই যুদ্ধে সৈন্যদের একে অন্যের সাথে সহজ যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে টেলিফোনের মতো একটি যন্ত্রের অভাব বোধ করে।

walkietalkie-supplier-in-bd

walkietalkie-supplier-in-dhakaতখন এই টেলিফোনের আদলেই ১৯৩৯ সালে Donald L.Hings, রেডিও ইঞ্জিনিয়ার Alfred J.Gross এবং Team of Motorola ওয়াকি-টকি নামে একটি যন্ত্র আবিষ্কার করতে সক্ষম হয়।

এই ওয়াকি-টকির মাধ্যমে তারা একে অন্যের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করতো। যুদ্ধের পরবর্তীতে সময়ে এই যন্ত্রটি জননিরাপত্তা,বাণিজ্যিক ও জবসাইট কাজে ছড়িয়ে পড়ে।

ওয়াকিটকি কি?

ওয়াকিটকি,এটি একটি যোগাযোগের মাধ্যম মাত্র অর্থাৎ বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রন কমিশন থেকে নির্দিষ্ট একটি ফ্রিকোয়েন্সির লাইসেন্স নিয়ে আপনি আপনার নির্দিষ্ট ব্যাক্তিদের সাথে একই সময় কানেক্টেড সবাইকে যেকোন বার্তা প্রেরন ও গ্রহন করতে পারবেন। যোগাযগের জন্য টেলিফোন কিংবা মোবাইল ফোনের মতো দেখতে এই যন্ত্রটির ব্যাবহার আপনার নিরাপত্তা নিশ্চিত সহ খরচ কমাতে সহায়তা করবে। আর এটা ওয়াকিটকি নামেই পরিচিত।

ওয়াকিটকি এর কাজঃ

এই ওয়াকিটকি মূলত ২য় বিশ্ব যুদ্ধে সৈন্য বাহীনিদের যোগাযোগের জন্য তৈরি করা হলেও বর্তমানে এর নানাবিধ কাজ পরিলক্ষীত হয়। জননিরাপত্তার জন্য এর ব্যাবহার বেশী করা হলেও বর্তমানে বিভিন্ন গার্মেন্টস,পাওয়ার স্টেশন,গোডাউন,ফ্যাক্টরি থেকে শুরু করে শপিং মল,ব্যাক্তিগত কাজেও এই ওয়াকিটকির ব্যাবহার বৃদ্ধি পেয়েছে।

এই যেমন ধরুন আপনার অনেক বড় একটা উৎপাদন মূলক প্রতিষ্ঠান রয়েছে,যেখানে অনেক শ্রমিক কাজ করে, আর তাদের নিরাপত্তা বা উৎপাদন কৃত পণ্যের তদারকি করার জন্য নিয়োজিত ব্যাক্তিরা বিভিন্ন কারনে বার বার যোগাযোগে মোবাইল ফোন ব্যাবহার করতে পারেনা অথবা সেখানে নেটওয়ার্ক সঠিক ভাবে কাজ করেনা তখন জরুরী প্রয়োজনে যোগাযোগের উপায় কি? সে মূহুর্তে নিরবিচ্ছিন্ন যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম এই ওয়াকিটকি বা রেডিও খুব কার্যকরি হিসেবে বিবেচিত হয়।

ওয়াকিটকি ক্রয় ও ব্যাবহারঃ

১২.১০.২০১৫ সালে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রন কমিশন বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকের মধ্যমে একটি নোটিশ প্রকাশের মাধ্যমে এই যন্ত্রের ক্রয় ও বিক্রির কিছু দিক নির্দেশনা সহ আইন অমান্যে ৩০০ কোটি টাকা জরিমানা অথবা ১০ বছরের জেল কিংবা উভয় দন্ডে দন্ডিত করার বিধান রেখে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করে।

সুতারাং আপনি এই ওয়াকিটকি যন্ত্রটি ক্রয়ে সর্বপ্রথম সঠিক বিটিআরসি লাইসেন্সধারী কোম্পানীকে খুঁজে বের করতে হবে,যা অলরেডি আপনার বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান অলিফিন্স ট্রেড কর্পোরেশনের রয়েছে। দ্বিতীয় ধাপে রঙ পছন্দ করে নিতে পারেন আপনার পছন্দের ওয়াকিটকির জন্য। কালো রঙ ব্যাতীত যে কোন রঙ (কারন কালো রঙ বাংলাদেশের নিরাপত্তা বাহীনি ব্যাবহার করে,তাই এটা সাধারনের জন্য নিষিদ্ধ)।

তৃতীয় ধাপে আপনার কোম্পানীর প্রথম শ্রেনীর গেজেটেড কর্মকর্তা কর্তৃক সত্যায়িত ব্যাবসায়িক লাইসেন্স এবং টিন সার্টিফিকেট ও নির্দিষ্ট কিছু ফি সহ বিটিআরসিতে জমা দিতে হবে। যার লাইসেন্স পেতে আপনাকে সর্বোচ্চ ১ মাস অপেক্ষা করে হতে পারে। আর এই কঠিন কাজটি ক্লাইন্টের হয়ে অলিফিন্স ট্রেড কর্পোরেশন নিজেরাই সম্পন্ন করে থাকে। (শর্ত প্রযোজ্য)

উল্লেখ থাকে যে বিটিআরসি ওয়াকিটকির জন্য দুই ধরনের লাইসেন্স ইস্যু করে থাকে।

১। ইন্ডিভিজুয়াল ফ্রিকোয়েন্সি (Individual Frequency), যা সরকারী,আধা-সরকারী এবং এয়ারওয়ে সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের জন্য প্রদান করা হয়।

২। এসবিআর (Short Business Radio) ফ্রিকোয়েন্সি, যা বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের জন্য প্রদান করা হয়।
যে কোন বেসরকারী প্রতিষ্ঠান বিটিআরসি থেকে এসবিআর (SBR) এর লাইসেন্স নিয়ে লিগ্যালি ওয়াকিটকি ব্যাবহার করতে পারে। এতে সেই প্রতিষ্ঠানকে কোন অতিরিক্ত চার্জ গুনতে হবেনা।

এটি ব্যাবহার খুবই বন্ধুসূলভ। সম্পূর্ণ ঝামেলা ছাড়ায় জায়গা ভেদে আপনি প্রায় ৫ কিঃমিঃ এলাকা জুড়ে আপনার অনুমোদিত ব্যাক্তিদের সাথে নিরবিচ্ছিন্ন তথ্য আদান প্রদান করতে পারবেন। এই ওয়াকিটকি ব্যাবহারের জন্য কেনার সময় সাথে আপনাকে একটি দিকনির্দেশনা মূলক ইউজার গাইড দিয়ে দেয়া হবে। পাশাপাশি আমাদের দক্ষ টিম হাতে কলমে আপনাকে শিখিয়ে দেবে এর সঠিক ব্যাবহার। এছাড়া যে কোন প্রয়োজনে আমরাতো আছি-ই।

ওয়াকিটকি বিক্রির সরকারী লাইসেন্স প্রাপ্ত অলিফিন্স ট্রেড কর্পোরেশন গ্রাহকের চাহিদার কথা মাথায় রেখে বিশ্ব সেরা ব্র্যান্ড Motocom এর সব মডেলের পন্য সরবরাহ করে থাকে। এছাড়া গ্রাহকের চাহিদার কথা মাথায় রেখে প্রয়োজন অনুযায়ী যে কোন ধরনের,যে কোন মানের ওয়াকিটকি সরবরাহ করে থাকে।

এক নজরে দেখে নিন অলিফিন্স ট্রেড কর্পোরেশন কর্তৃক আমদানিকৃত বিশ্ব বিখ্যাত ব্র্যান্ড মটোকম ওয়াকিটকির কিছু চমৎকার ফিচারঃ

  • সম্পূর্ণ পানি এবং ধূলা-বালি ঢুকা থেকে মুক…
  • বেশী দুরত্বের সংকেত দিতে সক্ষম।
  • চ্যানেল ক্যাপাসিটি ১৬ টি।
  • দীর্ঘ ব্যাটারী সহ পুরো চার্জে প্রায় ২০ ঘন্টা সচল থাকে।
  • ব্যাটারী,এন্টেনা সহ মাত্র ১৯০ গ্রাম ওজন।

এমন অসংখ্য মজার ফিচার সহ আপনার ওয়াকিটকিটা আজই অর্ডার করতে অলিফিন্স ট্রেড কর্পোরেশনে এখনি ফোন করুন।
এগিয়ে যান সমৃদ্ধি এবং নিরাপত্তার পথে।

সব ধরনের সহায়তা নিয়ে আমাদের একদল দক্ষ টিম সদা প্রস্তুত আপনার অপেক্ষায়।